Friday, February 3, 2023
Homeলাইফস্টাইলরান্নায় অতিরিক্ত লবণ! কীভাবে কাটাবেন? জানুন সাতটি উপায়

রান্নায় অতিরিক্ত লবণ! কীভাবে কাটাবেন? জানুন সাতটি উপায়

কথায় বলে যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে। আবার ঠিক তেমন ভাবেই যে ভুল করে সেই সমস্ত দিক সামাল দেয় যেমন একজন দক্ষ রাঁধুনী রান্না করতে গিয়ে কোন ভুল ত্রুটি হয়ে গেলে নিজেই সেই সমস্ত দিক সামাল দিয়ে ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন। রান্না করাও একটা বিশেষ আর্ট। অনেকেই আছেন যারা রান্নাকে পেশা হিসেবে নিয়ে খ্যাতির শীর্ষে পৌঁছে গিয়েছেন, অনেকে আবার শখে রান্না করেন। এখন রান্না করতে গেলে ছোটখাটো ভুলত্রুটি তো হতেই পারে। কিন্তু সেই সকল ভুল ত্রুটি গুলো কীভাবে ম্যানেজ করবেন তাও একজনের রাধুঁনিকেই ভাবতে হয় কারণ রান্না খারাপ হয়ে গেলে শুধু যে কথা শোনার ব্যাপার থাকে তাই নয়, বরং যিনি রান্না করেন তার‌ও মনটা খারাপ হয়ে যায়।

যে কোন রান্নাই সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ হলো লবণ। এটি এমন একটা জিনিস যা কম হয়ে গেলে রান্নায় কোন স্বাদ‌ই পাওয়া যায় না আবার রান্নায় লবণের পরিমাণ বেশি হয়ে গেলে তা খাওয়াও যায় না। তাই রান্নাতে লবণের পরিমাণ ঠিকঠাক হওয়া ভীষণভাবে গুরুত্বপূর্ণ। কারন একটি রান্নাতে তেল ঝাল মশলা যতই বুঝে-শুনে ঠিকমতো দেওয়া হোক না কেন যদি কোন কারণে রান্নায় লবণ বেশি হয়ে যায় তাহলে পুরো রান্নাই শেষ! তাই রান্নায় লবণ বেশি পড়লে রাঁধুনিদের মাথায় হাত পড়ে। কিন্তু এই সমস্যা থেকে বাঁচবেন কীভাবে? চলুন জেনে নিই কীভাবে রান্নায় লবণ বেশি হয়ে গেলে তা সামাল দিতে হয়। আজ আমি আপনাদের চটজলদি সাত টি উপায়ের কথা বলবো, চলুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

১. পেঁয়াজঃ

রান্নায় লবণ বেশি হলে পেঁয়াজ ভীষণরকমভাবে কাজে আসে। এক্ষেত্রে কাঁচা ও ভাজা দুই রকম ভাবেই পেঁয়াজ ব্যবহার করতে পারেন। তবে দুটোর ক্ষেত্রে আলাদা আলাদা পদ্ধতি আছে। যদি কাঁচা পেঁয়াজ রান্নায় ব্যবহার করেন, তাহলে সেটি দুই টুকরো করে কিছুক্ষণ তরকারিতে রেখে দিন ও তারপর সরিয়ে ফেলুন। এর ফলে রান্নায় থাকা অতিরিক্ত লবণ দূর হয়ে যাবে। এছাড়া আপনি পেঁয়াজ ভেজে সরাসরি তরকারিতে দিতে পারেন, এর ফলে রান্নায় লবণের পরিমাণে যেমন ভারসাম্য আসবে তেমনি ভাজা পেঁয়াজ দেওয়ার ফলে রান্নায় একটা অনন্য স্বাদ আসবে।

২. দইঃ

রান্না করা তরকারিতে লবণ বেশি হয়ে গেলে টকদই দিতে পারেন। অনেক গৃহিণীরাই রান্নার মুশকিল আসান করতে এই উপাদানটি ব্যবহার করে থাকেন। রান্না হয়ে যাওয়ার পর যদি চেখে নিয়ে দেখেন যে তাতে লবণের পরিমাণ বেশি তাহলে সেই রান্নার মধ্যে এক চামচ টক দই দিয়ে দিন। এতে স্বাদ যেমন বাড়বে তেমনি রান্নায় বাড়তি লবণের প্রভাবও কেটে যাবে। তবে অনেকে আবার টক এর পরিবর্তে মিষ্টি দই দেন, এটা ব্যক্তিবিশেষের স্বাদ ও পছন্দের উপর নির্ভর করে।

৩. দুধঃ

রান্নায় যদি লবণ বেশি হয় তাহলে হাতের কাছে আর কিছু না থাকলে অল্প একটু দুধ মিশিয়ে দিন। তবে কাঁচা দুধ দেবেন না, আগে থেকে জাল দিয়ে রাখা দুধের থেকে কিছুটা তরকারিতে দিয়ে কষতে থাকুন। এরফলে খাবারে অতিরিক্ত লবণাক্ত স্বাদ দূর হয়ে যাবে এবং রান্নায় দুধ ব্যবহার করার ফলে খাবার‌ও সুস্বাদু হবে।

৪. আলুঃ

বাড়িতেই অতীতে এসে হাজির হয়ে গেছে অথচ আপনি রান্না চেখে দেখলেন এটি নুনে পড়া হয়েছে সেক্ষেত্রে হাতের কাছে আর কিছু না থাকলে আলু ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে রান্নায় দিয়ে দিন। বাড়তি এই আলু আপনার তরকারিতে থাকা অতিরিক্ত লবণাক্ততা শুষে নেবে। মিনিট পনেরো বিশ মত এই আলুটি রেখে দিন, তারপর মনে হলে আলুটি সরিয়ে নেবেন আর না হয় রেখে দেবেন।

৫. ময়দাঃ

তরকারিতে যখন লবণ বেশি হয়ে গেছে বুঝবেন তখন ম্যানেজ করবার জন্য ছোট ছোট আটা বা ময়দার বল তৈরি করে রান্নায় দিয়ে দিন। এই বলগুলো অতিরিক্ত লবণ শুষে নেবে। তবে রান্নাটি যখন গ্যাস থেকে নামাবেন তখন এই বল গুলো তুলে নেবেন।

৬. ফ্রেশ ক্রিমঃ

সবার বাড়িতে হাতের কাছে সব সময় ফ্রেশ ক্রিম থাকেনা। তবে যদি কারোর বাড়িতে থাকে ফ্রেশ ক্রিম, তবে তরকারির অতিরিক্ত লবণ কমানোর কাজে সেটিকেও ব্যবহার করতে পারেন।

৭. ভিনিগারঃ

ভিনিগারের অনেক উপকারিতার পাশাপাশি এটাও একটা বলতে পারেন। ১ টেবিল চামচ ভিনেগার এর সাথে ২ চা-চামচ চিনি মিশিয়ে লবণাক্ত তরকারিতে দিয়ে দিন। টক-মিষ্টির এই স্বাদটা রান্নার অতিরিক্ত নোনতা ভাব কাটিয়ে তুলবে সহজেই।

তাই রান্নায় নুন বেশি পড়লে, নো টেনশন। হাতের কাছে থাকা এই সাতটি উপায় এর মধ্যে যেকোনো একটি ট্রাই করুন। সহজেই সমস্যার থেকে সমাধান মিলবে।

RELATED ARTICLES

Most Popular