Friday, February 3, 2023
Homeপৌরাণিকজেনে নিন ঘর সংসার থেকে নেতিবাচক শক্তি দূর করতে কী কী করবেন

জেনে নিন ঘর সংসার থেকে নেতিবাচক শক্তি দূর করতে কী কী করবেন

ঘরে শুভ-অশুভ এই বিষয়গুলি সকলেই কমবেশি মানেন। আসলে সংসারে এমন অনেক বিষয় আছে যেগুলি মানা না মানার ওপর সংসারে শান্তি নির্ভর করে। অনেকে হয়তো এই বিষয় গুলিকে অন্ধবিশ্বাস বলে হেসে উড়িয়ে দিতে পারেন, তবে কথায় বলে ‘বিশ্বাসে মিলায় কৃষ্ণ, তর্কে বহুদূর’ অর্থাৎ বিশ্বাস দৃঢ় হলে ভগবান প্রাপ্ত হওয়া যায়। তাই সংসারে ছোটখাটো কতগুলি বিষয় যদি মেনে চলা যায় তাহলে সংসারে অবশ্যই শান্তি ফিরে।

বাস্তুশাস্ত্র মতে বলা হয় শক্তি মূলত দুই রকমের, একটি ইতিবাচক শক্তি, একটি নেতিবাচক শক্তি। ইতিবাচক শক্তির ফলে সংসারের শুভ জিনিসের বৃদ্ধি ঘটে অন্যদিকে নেতিবাচক শক্তির ফলে সংসারে অশুভ শক্তির বৃদ্ধি ঘটে। সনাতন শাস্ত্রে আবার লক্ষী ও অলক্ষীর বিষয়টা আছে। দেবী লক্ষ্মীর কৃপায় সংসারে শ্রী সৃষ্টি হয়, অন্যদিকে অলক্ষীর নজরে সংসারের মধ্যে বিশ্রী ব্যাপার ঘটে। তাই বলা হয় দেবী লক্ষ্মীর কৃপা প্রাপ্ত হওয়ার জন্য কিছু জিনিস মেনে চলতে হয়, সেগুলি মেনে চললে সংসার সুখ ও সমৃদ্ধিতে ভরে ওঠে আর সেই বিষয়গুলি ঠিকমতো মেনে চললে সংসারে অলক্ষ্মীর নজর পড়ে, অলক্ষ্মীর নজরে সংসার ছারখার হয়ে যায়। সংসারে ঝগড়া, অশান্তির সৃষ্টি হয়।

সংসারে ঝগড়া, অশান্তি হয় নেতিবাচক শক্তি থাকার ফলে। তাই নেতিবাচক শক্তির প্রভাব কমাবার জন্য অনেকে অনেককিছু করে থাকেন। কেউ কেউ নানান রকম বাড়িতে যঞ্জ করে থাকেন, কেউ আবার নানান রকম পুজো দিয়ে থাকেন, অনেকে আবার নানান রকম টোটকা ব্যবহার করে থাকেন, কেউ কেউ আবার তান্ত্রিকের শরণাপন্ন হন। তান্ত্রিকের শরণাপন্ন হলে স্বাভাবিক ভাবে প্রতারিত হওয়ার নানান রকম ব্যাপার থেকে যায়, তাই আজ আমি আপনাদের বলবো সংসারের থেকে নেতিবাচক শক্তি দূর করতে কী কী করবেন?

ইতিবাচক ও নেতিবাচক শক্তি আপনার জীবনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রভাব ফেলতে পারে। তাই ঘরে কোনো নেতিবাচক শক্তির উপস্থিতি টের পেলে তা অবশ্যই ঘর থেকে সরিয়ে ফেলা উচিত। বাস্তুশাস্ত্রে বলা হয়, বাস্তুর এমন কিছু জিনিস আছে যা নেতিবাচক শক্তি সৃষ্টি করে। তাই নেতিবাচক শক্তি সৃষ্টিকারী এই সকল জিনিস গুলি যদি বাড়ির থেকে সরিয়ে ফেলেন তাহলে ঘরে থাকা নেতিবাচক শক্তিগুলি ও অনায়াসেই দূর হয়ে যাবে।

তাহলে চলুন জেনে নিন ঘর সংসার থেকে নেতিবাচক শক্তি দূর করতে কী কী করবেন?

১। ভাঙা গ্লাস নয়-

অনেক সময় কাজ করতে করতে ঘরের মধ্যে অনেক গ্লাস ভেঙ্গে যায়। আমরা তখন সেই গ্লাস ভাঙ্গা ঘরের কোন একটা কোনায় রেখে দিই পরবর্তীকালে হয়তো কোন নোংরা আবর্জনা তার মধ্যে ফেলে রাখি। আর ছোটখাট জিনিস নোংরা আবর্জনা ফেলার জন্যই হয়তো সেই গ্লাস ভাঙ্গা ঘরের কোন একটা কোনায় থেকে যায়। কিন্তু ঘরের মধ্যে থাকা এই গ্লাস ভাঙাটি যে ঘরের মধ্যে নেতিবাচক শক্তি সৃষ্টি করছে তা কি আপনারা জানেন? হ্যাঁ কোন গ্লাস ভাঙ্গা ঘরে রাখবেন না।

২। ফাটা জানলার কাঁচ-

কোন জানলার কাঁচে যদি ফাটল ধরে সেক্ষেত্রে অবিলম্বে সেই জানালার কাঁচটি সারিয়ে ফেলুন।

৩। ভাঙ্গা মূর্তি নয়-

কোন ঘরে যদি ঠাকুর দেবতার ভাঙ্গা মূর্তি থাকে, তবে সেটি তৎক্ষণাৎ সরিয়ে ফেলুন। একইভাবে ঘরে যদি ঠাকুরের ছবি ছিঁড়ে যায়, তাহলে সেটি সেলোটেপ দিয়ে জোড়া লাগিয়ে রেখে দেবেন না। সেটি ঘর থেকে সরিয়ে নতুন ঠাকুরের মূর্তি আনুন। ঠাকুর দেবতার এই খন্ডিত মূর্তিগুলি যেখানে সেখানে না ফেলে কোন জলাশয়ে দিয়ে দিন।

৪। কাঁটা জাতীয় গাছ নয়-

ঘরের মধ্যে কোনরকম কাঁটা জাতীয় গাছ রাখবেননা। কাঁটা জাতীয় গাছের থেকে সংসারে ঝগড়া অশান্তির সৃষ্টি হতে পারে।

৫। খারাপ বৈদ্যুতিন আইটেম নয়-

আপনার ঘরের কোন ঘড়ি, মোবাইল, বৈদ্যুতিন কোনো আইটেম খারাপ হয়ে গেলে অবিলম্বে তা সারিয়ে নিন। এই খারাপ আইটেমগুলির থেকে নেতিবাচক শক্তির সৃষ্টি হবে।

৬। দুটো শিবলিঙ্গ রাখবেন না-

বাড়িতে ভুলেও দুটি শিব লিঙ্গ রাখবেন না। এতে দেবাদিদেব মহাদেব চটে যাবেন। একটি শিবলিঙ্গেই ভক্তিভরে পুজো করুন মহাদেব কৃপা করবেন।

৭। ঠাকুরের একাধিক ছবি-

একই ঠাকুরের একাধিক ছবি বা মূর্তি ঠাকুরঘরে রাখবেন না, একটি ছবি বা মূর্তি রাখবেন। এতেই ফল পাবেন।

৮। সাদা শিব লিঙ্গ-

ঠাকুর ঘরে সাদা শিব লিঙ্গ রাখবেন না। সাদা শিব লিঙ্গ মহিলাদের স্পর্শ করতে নেই।

RELATED ARTICLES

Most Popular