Friday, February 3, 2023
Homeলাইফস্টাইলএই ৬টি টিপস আপনার সন্তানকে জন্ম থেকেই শেখান, তাহলে সে বন্ধু নির্বাচন...

এই ৬টি টিপস আপনার সন্তানকে জন্ম থেকেই শেখান, তাহলে সে বন্ধু নির্বাচন করতে শিখবে

কথাতে বলা হয় ‘উত্তম নিশ্চিন্তে চলে অধমের সাথে। তিনিই মধ্যম যিনি চলেন তফাতে’- সত্যি কারের যিনি উত্তম তিনি সকলের সাথেই মিশতে পারেন আর যিনি মধ্যম তিনি দুইয়ের সাথেই একটু তফাৎ রেখে চলেন কারণ তিনি জানেন যে তিনি অধমের সাথে চললে অধমের মধ্যে থাকা কু গুলো তার মধ্যে সঞ্চারিত হতে পারে কারণ কু এর সাথে মিশেও নিজেকে সু গুণ কে বজায় রাখা তার কম্ম নয় আবার উত্তমের সাথে মিশলেও তিনি হীনমন্যতায় ভুগবেন। এই প্রবাদ বাক্য শুধু যে সমাজের উত্তম, মধ্যম ও অধম সম্পর্কে ধারণা ঠিক করে তাই নয় এর পাশাপাশি এই প্রবাদ বাক্যের মধ্যে থেকে আমরা অনেক কিছু শিক্ষা লাভ করতে পারি। এই প্রবাদ বাক্যের একটি লাইনই প্রমাণ করে দেয় যে, সমাজে বাঁচতে গেলে, উন্নতি করতে গেলে, বেঁচে থাকতে গেলে এবং সর্বোপরি টিকে থাকতে গেলে ‘সঙ্গ’ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তুমি কার সাথে মিশছো তা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পজিটিভ মানুষের সাথে ৫ মিনিট কথা বললে আপনি এই জগত ও জীবনের সম্পর্কে পজিটিভ ভাবে ভাবতে শিখবেন অন্যদিকে নেগেটিভ মানসিকতা সম্পন্ন কোন মানুষের সাথে ২ মিনিট বসলে আপনি বিষন্নতায় ভুগবেন। তাই আপনি কার সাথে মিশবেন তা সম্পূর্ণ আপনার সিদ্ধান্ত।

তবে এই সঙ্গ বাছার ক্ষেত্রে কতগুলো টিপস দিতে পারি।

আপনি যদি কখনো কোন সদ্ গুরু, বৈষ্ণব বা সাধু সন্ন্যাসীর কাছে তিন মিনিট বসে থাকেন তাহলে আপনার মনে হবে জীবনের যাবতীয় মোহ মায়া ত্যাগ করতে। আপনার মনে হবে আপনার সর্বস্ব সঞ্চয় দান করে দিয়ে ভগবানের নাম করে জীবন কাটিয়ে দিতে। আপনি যদি অর্থলোভী কোন মানুষের সাথে বসে কথা বলেন তাহলে আপনার মনে হবে আপনি জীবনে কি করলেন? সে এত সঞ্চয় করেছে আপনি তার কাছে নগণ্য মাত্র!

আপনি যদি কোন শ্রমিকের সাথে দুই মিনিট বসে থাকেন তাহলে বুঝতে পারবেন আপনি সারাদিনে কত সময় অযথা ব্যয় করেন আপনি কত অলস! আপনি যদি কোন রাজনীতিবিদের সাথে কথা বলেন তাহলে আপনার মনে হবে পড়াশুনা করে কী করলেন? আপনি যদি কোন বেকারের পাশে বসে থেকে কথা বলেন তাহলে আপনার মনে হবে আপনার কাজের জন্য আপনি ভাগ্যবান। কারণ আপনি এমন একজন মানুষ যার নির্দিষ্ট কিছু কাজ আছে এবং এই সমাজে এবং সংসারে তার একটি নির্দিষ্ট ভূমিকা আছে।

একজন ভালো শিক্ষকের সাথে কথা বলুন বুঝতে পারবেন বিনয়, দয়া,সহ্য,ধৈর্য্য কী জিনিস! একজন দানীর সাথে কথা বলুন নিজেকে প্রবল অর্থে সঞ্চয়ী বলে মনে হবে! কোন ধনী ব্যক্তির সাথে যদি আপনি কথা বলেন তাহলে আপনার মনে হবে আপনার মত গরীব বোধহয় কেউ নেই আর আপনি যদি এমন কারো সাথে দুই মিনিট বসে থাকেন যাকে দুবেলা খাওয়ার জন্য অন্যের দুয়ারে হাত পাততে হয়, শীতকালে গায়ে দেওয়ার চাঁদর টুকু ও জোটে না, তখন আপনার মনে হবে আপনি ধনী।

একজন পাগলের কাছে বসলে মনে হবে আপনি ভগবানের কৃপায় সুস্থ রয়েছেন, একজন শোকার্ত মানুষের পাশে বসলে মনে হবে ভগবান কত কৃপাময় যে আপনার জীবনকে তিনি শোকের সাগরে নিমজ্জিত করেননি। আপনি কত সুখী।

যে মানুষটি জন্ম থেকে স্ট্রাগল করেছে, বাবা মায়ের ছত্র ছায়া ভিন্ন যে বেড়ে উঠেছে, মানুষের গালিগালাজ কেউ যে লড়াই করে গেছে এরকম কোন মানুষের পাশে যদি কখনো বসেন তাহলে বুঝতে পারবেন আপনি জন্ম থেকে সোনার চামচ নিয়েই জন্মেছেন।

আবার আপনি যদি একজন জীবন বীমা এজেন্টের সাথে বসে কথা বলেন দু মিনিট তাহলে আপনার মনে হবে বেঁচে থাকার থেকে মরে যাওয়া বোধহয় অনেক লাভজনক। এই সঙ্গ এড়িয়ে গিয়ে আপনি যদি এমন কোন মানুষের সাথে কথা বলেন যিনি এক্সিডেন্টের কারণে তার পা হারিয়েছেন অথবা দৃষ্টি ক্ষমতা হারিয়েছেন অথবা বাকশক্তি হারিয়েছেন তবু প্রতিনিয়ত জীবনযুদ্ধে লড়াই করে যাচ্ছেন শুধু বেঁচে থাকার জন্য তখন আপনার মনে হবে আপনি এই মানুষটির থেকে অনেক অনেক ভাগ্যবান এবং লাকি আপনার জীবন অনেক বেশি সুন্দর এবং সৃষ্টিকর্তার কৃপায় পরিপূর্ণ। তাই আপনি কার পাশে বসে কথা বলছেন তা সব সময় গুরুত্বপূর্ণ, বন্ধু নির্বাচন সব সময় ভেবেচিন্তে করতে হয়।

RELATED ARTICLES

Most Popular